ভ্রমণ

ভ্রমণ ও পর্যটন

বাংলাদেশ থেকে বিপুলসংখ্যক মানুষ ভারতে বেড়াতে যান। নানা কারণে তারা যান-পারিবারিক বন্ধন বজায় রাখা,পড়াশুনো, ব্যবসায় কিংবা তীর্থযাত্রা, পর্যটন কিংবা চিকিত্সা- ভারত ভ্রমণের একটা কারণ সবসময় থাকেই।

সর্বদা উষ্ণ ও আমন্ত্রণমূলক ভারত হচ্ছে অফুরান বৈচিত্র্যের দেশ। ভারতের বিস্ময়কর বৈচিত্র্য বাংলাদেশেরভ্রমণকারীদের ছুটি কাটাবার প্রয়োজনীয় সব কিছু দিতে প্রস্তুত। উত্তরে হিমালয় পর্বতমালা এবং ৩টি সমুদ্রের বিশেষসৈকতভূমির কিনারবিশিষ্ট ভারত ভূ-প্রকৃতি, মনোমুগ্ধকর ঐতিহাসিক দ্রষ্টব্য ও রাজকীয় নগরসমূহ, সোনালি সৈকত,রহস্যাবৃত গিরিখাত, বর্ণাঢ্য মানুষজন, সমৃদ্ধ সংস্কৃতি ও উত্সবের জীবন্ত বর্ণবিভা।

বছরের যে-কোন সময় ভারত অনুপম ভ্রমণ-গন্তব্য ও অভিজ্ঞতার পশরা নিয়ে আপনাকে হাতছানি দিয়ে ডাকছে।গ্রীষ্মে যখন উপমহাদেশ তেতে ওঠে, আপনার জন্য আছে হিমালয়ের সৌন্দর্যমণ্ডিত বিশেষ শৈলনিবাস অথবা ঠাণ্ডাবিসর্পিল পথরেখাবেষ্টিত পশ্চিমঘাটের মদিরাময় উচ্চতা, খাড়া পর্বতশিখর বিজয়ের আহ্বান কিংবা অভিযাত্রীদেরজন্য অপেক্ষমাণ সাদা জলের স্রোতধারা।

শীতের ভারতে নগরগুলি নাচ-গানের সাংস্কৃতিক উত্সবে জীবন্ত হয়ে ওঠে। চমত্কার আবহাওয়ায় মধ্যযুগীয় দুর্গ ওপ্রাসাদে-আকীর্ণ শতাব্দীপ্রাচীন রোমাঞ্চকর নগরসমূহ বেড়াবার এক আদর্শ সময়। সৌরকরোজ্জ্বল বেলাভূমিআপনাকে আমন্ত্রণ জানাচ্ছে এবং অভয়ারণ্যগুলি তাদের বিপুল উদ্ভিদ ও প্রাণিকূল নিয়ে গুঞ্জরিত।

আগে বাংলাদেশের ভ্রমণকারীরা তাদের ভ্রমণ সাধারণত পশ্চিমবঙ্গ, সোনালি ত্রিভুজ অর্থাৎ  দিল্লি-আগ্রা-জয়পুর এবংআজমীর শরীফে সীমাবদ্ধ রাখতেন। কলকাতা সবসময় এর ভাষা ও সংস্কৃতির অভিন্নতার কারণে বাংলাদেশেরজনগণের পছন্দের গন্তব্য। ইদানিং  কলকাতার কোন কোন অঞ্চলে বাংলাদেশের ভ্রমণার্থীদের জন্য বিশেষ খানাপিনাও পোশাক-আশাক বিক্রির ব্যবস্থা থাকে। এতকিছুর পরেও বড় ধরনের পরিবর্তন এসেছে এবং বাংলাদেশের লোকএখন ভারতের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে বেড়াচ্ছেন। বাংলাদেশের ভ্রমণকারীদের কাছে ক্রমশ উত্তর-পূর্ব ভারত, আন্দামানও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ, জম্মু-কাশ্মীর এবং বেঙ্গালোর-মহীশূর/মাইসোরসহ দক্ষিণ ভারত পছন্দের গন্তব্য হয়ে উঠছে।

ভারত ভ্রমণ শুধু সাধ্যের মধ্যেই নয়, পছন্দের অনেক জিনিসসহ ব্যাপক অভিজ্ঞতা সঞ্চয়ের জায়গা বলে দেশটিবাংলাদেশে ব্যাপকভাবে প্রশংসিত। এতে আশ্চর্য হবার কিছু নেই যে, সাশ্রয়ী ব্যয়ে মানসম্পন্ন চিকিত্সার জন্য ভারতজনপ্রিয় হয়ে উঠছে। ব্যবসায়ের জন্য অনেক মানুষ এখন ভারত ভ্রমণে যান। ভারত প্রযুক্তি, ম্যানেজমেন্টকনসালটেন্সি, পণ্য ও সেবার উত্স এবং বাংলাদেশের অনেক কোম্পানির রপ্তানির গন্তব্যস্থল। অর্থনৈতিক ব্যস্ততাবৃদ্ধির সাথে সাথে ভ্রমণও বাড়ছে। ভারত ভ্রমণকারীদের একটি বড় অংশ জুড়ে রয়েছে ছাত্ররা। স্কুল ও বিশ্ববিদ্যালয়উভয় শিক্ষার জন্য তারা ভারতে যায়।

ভারতে ভ্রমণেচ্ছুদের সংখ্যা বৃদ্ধির কারণ হচ্ছে ভিসা ব্যবস্থা সহজ করার ফলে বিভিন্ন বিভাগে দীর্ঘমেয়াদী মাল্টিপোলএন্ট্রি ভিসা প্রদান। দুই দেশের মধ্যে সড়ক, রেল ও বিমানপথে আরামদায়ক সংযোগের ফলে ভ্রমণ সহজতর হয়েছে।

ভারত ভ্রমণ সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন:

  
 
 
 


ঠিকানা: ভারতীয় হাই কমিশন
প্লট নং. ১-৩, পার্ক রোড, বারিধারা, ঢাকা-১২১২
কর্ম ঘন্টা: সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫:৩০ মিনিট পর্যন্ত
(রবিবার থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত)
টেলিফোন নম্বরসমূহ: +৮৮০-২-৫৫০৬৭৩৬৪
ইপিএবিএক্স: +৮৮০-২-৫৫০৬৭৩০১-৩০৮ এবং +৮৮০-২-৫৫০৬৭৬৪৫-৬৪৯
ফ্যাক্স নম্বর: +৮৮০-২-৫৫০৬৭৩৬১