ইতিহাস
প্রথম পাতা ›  ঐতিহ্য  ›  ইতিহাস

ভারত এবং বাংলাদেশের মধ্যেকার ঐতিহাসিক বন্ধন কয়েক শতকের পুরনো।

 ১৯৪৭ সালের আগস্ট মাসে ভারতবর্ষ বিভক্ত হয়ে ভারত ও পাকিস্তান নামের দুটি সার্বভৌম রাষ্ট্রের জন্ম হয়েছিল। এই দুটিরাষ্ট্রের মধ্যে একটিতে ছিল পূর্ব পাকিস্তান যেটির রাজধানী ছিল ঢাকা।

 পরবর্তীকালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের পথ ধরে ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে নিবিড় সম্পর্ক গড়ে ওঠে। ওই সময়ে এককোটিরও বেশি মানুষ সীমান্ত পাড়ি দিয়ে নিকটবর্তী ভারতীয় রাজ্যসমূহ তথা পশ্চিমবঙ্গ, ত্রিপুরা এবং আসামে আশ্রয়ের জন্যছুটে গিয়েছিল। মানবিক কার্যক্রমের অংশ হিসেবে ভারত শরণার্থীদের আশ্রয়, খাদ্য এবং চিকিৎসা সেবা প্রদান করেছিল।

ভারতীয় সীমান্তের কাছে মেহেরপুরে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের অস্থায়ী সরকার গঠন করা হয়েছিল, যেটির নামকরণ করাহয়েছিল মুজিবনগর।

১৯৭১ সালের ৩ ডিসেম্বর পাকিস্তান ভারতে আক্রমণ করার পর ভারত যুদ্ধে অংশগ্রহণ করে। ১৯৭১ সালের ৮ ডিসেম্বরবাংলাদেশের তদানীন্তন প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমেদ এক রেডিও বার্তায় বলেন, ‘উভয় দেশের অভিন্ন শত্রুর বিপদবাংলাদেশ ও ভারতের জনগণকে পূর্বের যে কোন সময়ের চাইতে কাছাকাছি এনে দিয়েছে। আমাদের যোদ্ধারা এখন ভারতীয়সেনাদের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে যুদ্ধ করছে এবং তাদের রক্ত আমাদের রক্তের ধারার সঙ্গে মিশে গিয়ে আমাদের মাটিতেবইছে। এটি দুটি দেশের জনগণকে বিশেষ বন্ধুত্বের বন্ধনে আবদ্ধ করেছে.. যেটি সত্যিই বাংলাদেশ ও ভারত উভয় দেশেরজন্যই অসাধারণ একটি সময়। এটি কিন্তু খুবই স্বাভাবিক যে বিশ্বের সর্ববৃহৎ গণতান্ত্রিক দেশ হিসেবে ভারত স্বাধীন জাতিদেরদলে আমাদের সর্বপ্রথম স্বাগত জানাবে ... বাঙালি জাতি শ্রীমতি ইন্দিরা গান্ধীর বিচক্ষণতা এবং রাজননীতিজ্ঞতার প্রতিঅপরিসীম ঋণী ও কৃতজ্ঞ।’

মিত্র বাহিনী গঠনের লক্ষ্যে ভারতীয় সৈন্যদল এবং মুক্তি বাহিনী জোটবদ্ধ হয়েছিল। ভারতীয় দল, মুক্তি বাহিনী এবং অন্যান্যঅনিয়মিত যোদ্ধারা মিলে পূর্ব পাকিস্তানের স্বাধীনতা ত্বরান্বিত করেছিল। ১৯৭১ সালের ৬ ডিসেম্বর যশোর, খুলনা ওনোয়াখালীর পরপরই প্রথম যে বড় শহরগুলো দখল করা হয়েছিল সেগুলো হলো বর্তমান খুলনা বিভাগের ঝিনাইদহ এবংরংপুর বিভাগের লালমণিরহাট। ভারতীয় বায়ু এবং নৌসেনারা বিরতিহীন আক্রমণ চালিয়ে বিমান ঘাঁটি ও বন্দরগুলো নিয়ন্ত্রণেনিয়েছিল। ১৯৭১ সালে ১৪ ডিসেম্বরের মধ্যে মিত্র বাহিনী ঢাকার প্রান্তে পৌঁছে গিয়েছিল। 

১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে পাকিস্তানের সামরিক প্রশাসক ও ইস্টার্ণ আর্মি কমান্ডার লেফটেন্যান্টজেনারেল এএকে নিয়াজি অস্ত্র সমর্পণ এবং আত্মসমর্পণের দলিলে স্বাক্ষর করে ভারতীয় জেনারেল অফিসার কমান্ডার-ইন-চীফ লেফটেন্যান্ট জেনারেল জগজিৎ সিং অরোরার নিকট আত্মসমর্পণ করেন। পাকিস্তান বাহিনীর ৯৩০০০-এর বেশি সদস্যভারতীয় বাহিনীর কাছে আত্মসমর্পণ করে। যুদ্ধে ২০০০-এর বেশি ভারতীয় সেনা সদস্য প্রাণদান করেন। 

১৯৭১ সালের ৬ ডিসেম্বর ভারতই সর্বপ্রথম ‘গণ প্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ’-কে একটি সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দেয়।

বাংলাদেশে নতুন সরকার দায়িত্ব গ্রহণের পর ১৯৭২ সালের মার্চ মাসে বাংলাদেশ থেকে ভারতীয় বাহিনীকে সরিয়ে নেয়া হয়।

যুদ্ধে ভারতীয় সেনাসদস্যদের অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ বাংলাদেশ সরকার ২০১১ থেকে ২০১৩ সালের মধ্যে ভারতের সাবেকপ্রধানমন্ত্রী শ্রীমতি ইন্দিরা গান্ধীকে স্বাধীনতা সম্মাননা; ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী আই.কে গুজরাল ও ভারতের রাষ্ট্রপতিপ্রণব মুখার্জিকে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ সম্মান; এবং ভারতীয় সেনাবাহিনীর কতিপয় সদস্য ও সাধারণ নাগরিক ছাড়াওমিত্রবাহিনী ও ভারতের জনগণকে স্বাধীনতা যুদ্ধকালীন বন্ধু পুরস্কারে ভূষিত করেছে। ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী শ্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীকে বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক বাংলাদেশ স্বাধীনতা যুদ্ধ সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে।

See also :-

  1. Letter from the Acting President of the People’s Republic of Bangladesh Syed Nazrul Islam to the President of India, seeking Indian recognition of Bangladesh - Mujib Nagar, April 24, 1971. 

  2. Prime Minister Shrimati Indira Gandhi’s statement on situation in Bangladesh - 24 May 1971.

  3. Joint letter from President Syed Nazrul Islam and Prime Minister Tajuddin Ahmed of the People’s Republic of Bangladesh to the Prime Minister of India Mrs. Indira Gandhi repeating request for recognition of Bangladesh - December 4, 1971.

  4. Statement of the Prime Minister of India Mrs. Indira Gandhi in Parliament - New Delhi, December 6, 1971.

  5. Letter of the Prime Minister of India Mrs. Indira Gandhi to the Prime Minister of Bangladesh Tajuddin Ahmed conveying India’s recognition of Bangladesh - New Delhi, December 6, 1971.

  6. Instrument of Surrender of Pakistan Army to the Joint Command of the Indian and Bangladesh Forces - Dacca, December 16, 1971. 

  7. Statement of the Prime Minister of India Mrs. Indira Gandhi in Parliament on the Pakistan Army’s surrender in Bangladesh - New Delhi, December 16, 1971.

  8. India announces unilateral cease-fire - 17 December 1971.

  9.  Press note issued by the Government of India on the presentation of Credentials by the first Ambassador of Bangladesh to India - New Delhi, March 13, 1972.

  10. Question in the Lok Sabha: “Withdrawal of Indian army from Bangladesh” - New Delhi, March 30, 1972.  

*****

 
 
 


ঠিকানা: ভারতীয় হাই কমিশন
প্লট নং. ১-৩, পার্ক রোড, বারিধারা, ঢাকা-১২১২
কর্ম ঘন্টা: সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫:৩০ মিনিট পর্যন্ত
(রবিবার থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত)
টেলিফোন নম্বরসমূহ: +৮৮০-২-৫৫০৬৭৩৬৪
ইপিএবিএক্স: +৮৮০-২-৫৫০৬৭৩০১-৩০৮ এবং +৮৮০-২-৫৫০৬৭৬৪৫-৬৪৯
ফ্যাক্স নম্বর: +৮৮০-২-৫৫০৬৭৩৬১